Advertisement
  1. Photo & Video
  2. Resumes
Photography

ফটোগ্রাফি এবং ভিডিও প্রোডাকশনের কাজের জন্য রেজ্যুমে তৈরি করার উপায়

by
Length:LongLanguages:

Bengali (বাংলা) translation by Syeda Nur-E-Royhan (you can also view the original English article)

ভিজুয়াল আর্টের সাথে জড়িত ব্যক্তিদের জন্য রেজ্যুমে তৈরি করাটা বেশ সাহসের কাজ। কোনটা যোগ করতে হবে, কোনটা বাদ দিতে হবে, বা কিভাবে লিখলে সবকিছু সুন্দরভাবে প্রদর্শিত হবে তা জানাটা বেশ কঠিনই। এমনকি রেজ্যুমে লেখার ব্যাপারে অভিজ্ঞ ব্যক্তিরাও এইসব রেজ্যুমেতে কি থাকবে বা থাকবে না তা নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন মত পোষণ করেন। সেই সাথে যুক্ত হয় বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে সৃষ্টিশীল কাজ করে এমন জটিল পরিবেশের জন্য ঠিকভাবে রেজ্যুমে লেখার বাড়তি চাপ।

হতাশা দূর করুন! তার বদলে নিচের পরামর্শগুলো অনুসরণ করুন। কিছু টেম্পলেটে তথ্য যোগ করে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করুন এবং একটা বিস্তৃত প্রাথমিক খসড়া তৈরি করুন যেটি আপনি আপনার কর্মক্ষেত্রের অন্যান্যদের কাছে পাঠিয়ে তাদের মতামত নিতে পারবেন। তাদের পরামর্শ ও চাকরির প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী আপনার রেজ্যুমেটিকে সংশোধন করুন এবং তৈরি হয়ে যান নতুন করে শুরু করার জন্য।

Mono Resume template from Envato Market
এনভাটো মার্কেট থেকে পাওয়া মনো রেজ্যুমে টেম্পলেট

লেআউট

আমার নমুনা রেজ্যুমে তৈরি করার জন্য আমি এনভাটো মার্কেট থেকে পাওয়া মনো রেজ্যুমে টেম্পলেট ব্যবহার করছি। কিন্তু আপনি আপনার রেজ্যুমে কিভাবে উপস্থাপন করবেন তা বেশ কিছু বিষয়ের উপর নির্ভর করছে। যেমন আপনার রেজ্যুমের কোন বিষয়টিকে গুরুত্ব সহকারে তুলে ধরতে হবে, আপনি যেই ক্ষেত্রে আবেদন করছেন সেখানে ব্যবসার মান, এমনকি আপনি ব্যক্তিগতভাবে কী পছন্দ করেন তাও।

খুব চটকদার নয় কিন্তু অন্য সবগুলোর থেকে আলাদা হবে এমন কিছু তৈরি করতে পারলে ভালো। আমার উদাহরণ অনুযায়ী, আপনার ছবি যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলতে এখানে হেডারে যথেষ্ট পরিমাণ জায়গা রাখা হয়েছে। এমন একটি ছবি বাছাই করুন যার মাধ্যমে আপনার ব্যক্তিগত কায়দা, দূরদর্শিতা, বা বিশেষত্ব ফুটে উঠবে। আপনি আপনার পোর্টফলিওর প্রচ্ছদে ব্যবহার করেছেন যে ছবিটি সেটা অথবা সেটার সাথে পরিপূরক কোন একটা ছবি ব্যবহার করতে পারেন। সেই সাথে ছবিগুলোর কম্পোজিশনের দিকেও খেয়াল রাখবেন। আমি একটি ফ্রেঞ্চ পানির টাওয়ারের ছবি ব্যবহার করেছি যেখানে বাম এবং ডান পাশের মধ্যে ভারসাম্য রয়েছে। সেখানে আমার নাম স্পষ্টভাবে ফুটিয়ে তোলার জন্য যথেষ্ট জায়গাও রয়েছে। আপনার নাম এবং শিরোনাম ম্লান হয়ে যায় এমন ছবি হেডারে ব্যবহার করবেন না।

আমি টেম্পলেটের বাকি জায়গাগুলোতে যেসব তথ্য দেওয়া ছিল সেগুলো একইভাবে রেখে দিয়েছি যাতে আপনি দেখতে পারেন যে কোন উপাদান কিভাবে বিন্যস্ত করা হয়েছে।

layers
এই টেম্পলেটটি বিভিন্ন দলে ভাগ করা হয়েছে। এর প্রত্যেকটিতে অনেকগুলো স্তর রয়েছে। ফলে আপনার নিজের মতো করে তৈরি করার জন্য প্রচুর সুযোগ রয়ে গেছে।

মনো রেজ্যুমেতে রয়েছে একটি চিঠি, রেজ্যুমে, পোর্টফলিও, এবং হেডার/ফুটার। সেগুলো আপনি উপরের দলভিত্তিক স্তরগুলোতে দেখতে পাবেন। এই টেম্পলেটটি পুরোপুরিভাবে সম্পাদনাযোগ্য। কাজেই আপনার প্রয়োজনমত এটিকে খুব সহজেই পরিবর্তন করা যাবে।

বিষয়বস্তু: যা যা যোগ করতে হবে

যোগাযোগের ঠিকানা

ব্যক্তিগতভাবে আমি রেজ্যুমেতে কখনও ঠিকানা লিখি না। আপনি কখনোই নিশ্চিতভাবে জানতে পারবেন না এইসব তথ্য কোথায় যাচ্ছে। আমি একদম জনসম্মুখে কাউন্টারের উপর একগাদা রেজ্যুমে পড়ে থাকতে দেখেছি। এমনকি চিরে না ফেলে আবর্জনার বাক্সে ফেলে দিতেও দেখেছি।

এরপর কথা হচ্ছে, আপনার সম্ভাব্য চাকরিদাতা যাতে আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। কাজেই আপনার ব্যবহৃত ফোন নাম্বার এবং ইমেইল অ্যাড্রেস অবশ্যই যোগ করবেন। খেয়াল রাখবেন আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস যেন বোধগম্য কিছু একটা হয়। আর তা যদি না হয়ে থাকে তবে শুধু মাত্র কাজের জন্য একটা তৈরি করে নিন। ইমেইল অ্যাড্রেসটি যাতে সহজে বানান করা যায় এবং অপেক্ষাকৃত ছোট ও সহজ হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। আপনি যদি নিজের জন্য একটা বিশেষায়িত ইমেইল অ্যাড্রেস তৈরি করতে পারেন, যেমন firstname@businessname.com, তাহলে খুবই ভালো হয়।

আপনার যদি নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকে আর তা যদি প্রাসঙ্গিক হয় তাহলে সেটির লিঙ্ক যোগ করে দিন। আর আপনার ওয়েবসাইট যদি আপনার প্লাস্টিক বা ক্ষুদে পুডলের সংরহশালার জন্য তাহলেও ভালো (সত্যি বলছি...)। তবে এটা আপনার বন্ধুদের কাছে প্রচারের জন্যই বেশি উপযোগী। 

আমি যেই নমুনাটি ব্যবহার করছি সেখানে একটি স্কাইপে হ্যান্ডল রয়েছে। অনেক নিয়োগকর্তাই প্রাথমিক সাক্ষাৎকারের জন্য স্কাইপে ব্যবহার করেন। পরবর্তীতে বিভিন্ন মিটিং, বিশেষ করে ফ্রিল্যান্সারডের সাথে কথা বলতেও এটি ব্যবহার করা হয়। কাজেই আপনার যদি ইতোমধ্যে স্কাইপে অ্যাকাউন্ট না থেকে থাকে তাহলে এখনি সময় একটি খুলে ফেলার

আপনার জাতীয়তা বা বৈবাহিক সম্পর্ক উল্লেখ করার কোন বাস্তব যৌক্তিকতা নেই যদি না আপনি যেই কাজের জন্য আবেদন করছেন সেখানে এটি জরুরী হয়ে থাকে।

ব্যক্তিগত বিবরণ বা প্রোফাইল

যদিও নিজের সম্পর্কে বলার জন্য এটা বেশ ভালো একটা সুযোগ, তবে আমার পরামর্শ হচ্ছে এই অংশটুকু সংক্ষিপ্ত রাখার। খুব বেশি লম্বা হয়ে গেলে এই অংশটুকু দাম্ভিক বা আত্মপক্ষ সমর্থনমূলক মনে হতে পারে। আপনার অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতা নিজেই আপনার পরিচয় তুলে ধরবে।

আমাদের টেম্পলেটের ব্যক্তিগত বিবরণের জায়গাতা মাত্র চার লাইনের রাখা হয়েছে। কাজেই আপনি নিজেকে সংক্ষেপে, পেশাদারিত্ব ও বন্ধুত্বপূর্ণ মনোভাবের সাথে নিজেকে তুলে ধরতে আগ্রহী হবেন। এই ভারসাম্য বজায় রাখা বেশ কঠিন। খুব বেশি আনুষ্ঠানিক ভাষায় কথা বললে আপনাকে শীতল ও কঠিন ব্যক্তিত্বের অধিকারী মনে হতে পারে। আবার খুব বেশি বন্ধুসুলভ হলে আপনাকে তারা গুরুত্বের সাথে নাও নিতে পারে। আমার পরামর্শ হচ্ছে  বিনম্র এবং কিছুটা আনুষ্ঠানিক ভাষায় উষ্ণতাপূর্ণ বিবরণ লেখা।

মনো রেজ্যুমেতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে আপনার দক্ষতার মাত্রা পরকাশ করার জন্য আইকন যুক্ত করা আছে। আমি রেজ্যুমেতে ইনফোগ্রাফিক লেখার খুব বেশি ভক্ত নই। তবে ঠিক জায়গায় আপনার দক্ষতা চাক্ষুষভাবে দেখাতে এটি একটি ভালো পদ্ধতি হতে পারে। এমনকি চাক্ষুষ পদ্ধতিতে আপনার দক্ষতা জানান দেওয়ার দক্ষতাও প্রকাশ পাবে।

অভিজ্ঞতা, বৃত্তি, এবং অনুদান

অভিজ্ঞতা

আপনার কি কোন অভিজ্ঞতা আছে? উত্তর না হলেও চিন্তার কোন কারণ নেই। আমাদের সবার জন্যই এটা কোন না কোন সময়ে উভয়সঙ্কটের কারণ ছিল। আমরা চাকরি চাই কিন্তু সেই চাকরিতে আবেদন করে কাজ করার যে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারব সেই অভিজ্ঞতা ছাড়া চাকরিটি পাওয়া সম্ভব না। আপনিও যদি একই সমস্যার মুখোমুখি হয়ে থাকেন তাহলে ভেবে বের করুন আপনার কোন কাজের অভিজ্ঞতাটি এখানে প্রাসঙ্গিক হতে পারে যেটি এখানে যুক্ত করা সম্ভব। স্বেচ্ছাসেবী কাজ হতে পারে সেটা, বা নিজ উদ্যোগে করা কোন প্রকল্প যেটা পরবর্তীতে কাজে লাগানো যাবে বা কোথাও এটা প্রকাশ করা যাবে যাতে আপনি তা এখানে যোগ করতে পারেন।

আপনার কাজের অভিজ্ঞতার তালিকা প্রাসঙ্গিক রাখুন। সম্ভব হলে উল্লেখযোগ্য সময় ধরে কর্মবিরতি চিহ্নিত থাকুক আপনার রেজ্যুমেতে তাও নিশ্চই চান না (যদি না খুব ভালো কোন কারণ থেকে থাকে। যেমন আপনি এক বছরের বিরতি নিয়ে বিভিন্ন জায়গা ভ্রমণ করেছেন। যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই তা উল্লেখ করবেন!)। কিন্তু তাই বলে অপ্রয়োজনীয় বিবরণ, যেমন দ্রুত টাকা কামানোর জন্য চাকরির সাথে অপ্রাসঙ্গিক কোন খুচরা বা কল সেন্টারে কাজ করার অভিজ্ঞতার বর্ণনা দিয়ে মানসিকভাবে গোলমেলে করে ফেলবেন না। যদি এমন কিছু যোগ করতেই হয় তবে খেয়াল রাখবেন যে শুধু মাত্র একটা বাক্যে দিনতারিখ আর স্থান উল্লেখ করা হয় যেন।

প্রদর্শনী এবং প্রকাশনা

এখানেই সৃজনশীল ক্ষেত্রের সাথে সাধারণ ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে পাঠানো রেজ্যুমে দেখতে ভিন্ন হয়ে যায়।

আপনার কাজের কোন প্রদর্শনী হয়েছিল কি? যদি হয়ে থাকে তাহলে আপনার সাম্প্রতিক প্রদর্শনীগুলোর তালিকা এবং সেগুলো কোথায় হয়েছিলো তার বিবরণ উল্লেখ করুন।

একইভাবে, কোন বই, ম্যাগাজিন বা আর্টিকেলে যদি আপনার কাজ সম্পর্কে লেখা হয়ে থাকে তাহলে প্রাসঙ্গিক তথ্যগুলোর তালিকা তৈরি করুন। প্রকাশনার নাম এবং কোথায় প্রকাশ করা হয়েছিলো তা উল্লেখ করুন। লেখাটি যদি অনলাইনেও প্রকাশিত হয়ে থাকে তাহলে সেটির লিঙ্ক যোগ করে দিন।

আপনি যদি উন্মত্তের মতো প্রদর্শনী বা প্রকাশনায় অংশ নিয়ে থাকেন তাহলে খুবই ভালো কথা! তাহলে আপনার কাজ শ্রেণিবিভাগ অনুসারে আলাদা করে উল্লেখ করুন যাতে পাঠকের জন্য পড়তে সহজ হয়।

এই অংশটুকুকে গত দোষ বছরে আপনার করা প্রত্যেকটি কাজের তালিকা হিসেবে না তৈরি করে বরং আপনার সাম্প্রতিক এবং প্রাসঙ্গিক কাজের চিত্রায়ন হিসেবে গণ্য করুন। কোন উল্লেখযোগ্য সাফল্য সাম্প্রতিক না হলে তাঁকে ব্যতিক্রম হিসেবে ধরে উল্লেখ করা যেতে পারে (যেমন, পুলিৎজার পুরষ্কার, হতে পারে না?)

অনুদান

আপনি যেসব অনুদান পেয়েছেন সেগুলো উল্লেখ করতে ভুলবেন না। এর মানে হচ্ছে আপনার মেধাকে স্বীকৃতি দিয়ে পুরস্কৃত করার বা অর্থ অনুদানের যোগ্য মনে করেছে কেউ না কেউ।   সেসব অনুদানের ফলে যদি আরও কোন সাফল্য আসে, যেমন প্রদর্শনী, প্রকাশনা, বা বৃত্তি, তাহলে অবশ্যই তা জানিয়ে দিবেন এবং প্রয়োজনে দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করবেন।

শিক্ষা

শিক্ষাগত যোগ্যতার অংশটিতে বেশ কৌশলী হতে হবে। আপনার মনে যা যা আসে তার সব লিখে ফেলার প্রবল ইচ্ছা হতেই পারে। কিন্তু আপনার পছন্দের পেশার দিকে লক্ষ্য রেখে আপনার প্রাসঙ্গিক শিক্ষাগত যোগ্যতা লিপিবদ্ধ করুন। কিন্তু কথা হচ্ছে, আমি অনেক আর্টিকেলেই পরেছি যে অপ্রাসঙ্গিক কোন কিছুই লেখা যাবে না। আমি এতে একমত নই। আপনার যদি গণিতে ডিগ্রি থেকে থাকে আর আপনি এখন ফটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করতে চান তাহলে আমি মনে করি আপনার এই ডিগ্রিটিও উল্লেখ করা জরুরী। তার মানে এই না যে আপনার কাজের ভ্রমণ ভাতায় পিথাগোরাসের উপপাদ্য কাজে লাগবে বলে আপনি দাবি করছেন (যদিও সেটাও নিশ্চিতভাবে বলা যায় না)। বরং এতে প্রমাণিত হচ্ছে যে আপনি এমন এক পরিবেশে কাজ করে এসেছেন যেখানে আপনাকে একটা নির্দিষ্ট মান বজায় রাখতে চিন্তা করে কাজ করতে হয়েছে। আর এটা মোটেও খারাপ কিছুই না।

education
টেম্পলেটের শিক্ষাগত যোগ্যতার অংশ

আমি যেই টেম্পলেটটি ব্যবহার করছি এখানে শিক্ষাগত যোগ্যতার অংশটুকু সংক্ষিপ্ত এবং সহজ রাখা হয়েছে। এক নজরে আপনি দেখতে পাবেন কোন সালে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে কোন বিষয়ে কি ধরণের যোগ্যতা নিয়ে বের হয়ে এসেছেন। এইটুকুই আপনার দরকার। এর বেশি কোন বিবরণ বা ব্যাখ্যা দরকার হলে পড়ে দেওয়া যাবে। নিয়োগকর্তারা চান এমন কোন দক্ষতা আপনি আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অর্জন করে থাকলে তার বর্ণনা কভার লেটার বা সাক্ষাৎকারে উল্লেখ করতে পারেন।

দক্ষতা

মনো রেজ্যুমেতে সফটওয়্যার প্রোগ্রামের প্রোফাইল তৈরি করা আছে। তবে আমি চাইব এটাকে সফটওয়্যার ব্যবহারের দক্ষতায় রূপান্তর করাতে আর এটিকে আরও একটু বিস্তৃত করতে। যেমন, অ্যাডোবি ফটোশপ আর অ্যাডোবি লাইটরুমের তালিকা করার চাইতে আপনি অ্যাডোবি সফটওয়্যার ব্যবহার করে ফটোগ্রাফ নিয়ে কাজ করা, সূক্ষ্মভাবে সংশোধন করা, এবং সম্পাদনার কাজে দক্ষ এটা উল্লেখ করতে পারলে ভালো।

আপনার দক্ষতা একটা সাধারণ মাপকাঠিতে ফেলে পরিমাপ করার কাজেও খেয়াল রাখতে হবে। কারণ এর মানদণ্ড কোথায়ই বা নির্ধারণ করা আছে? ধরুন, আপনি ফটোগ্রাফারের জন্য যতোটুকু প্রয়োজন ততোটুকু দখতা আপনার আছে। কিন্তু একজন গ্রাফিক ডিজাইনারের সমমানের দক্ষতা হয়তো আপনার নেই। কাজেই আপনি নিজেকে দক্ষতার মাপকাঠিতে অর্ধেক দিতে পারেন। এটার মানে আবার এমনও হতে পারে যে আপনি এই সফটওয়্যার ব্যবহারে একদমই অভ্যস্ত নন। আমি বরং এভাবে লিখব যে আমি এই সফটওয়্যার ব্যবহারে দক্ষ (আমার অভিজ্ঞতা ও চাকরির শর্তানুযায়ী) এবং পরবর্তীতে যদি কথাবার্তা আরও আগায় তাহলে বিস্তারিত জানাতে পারব।

আপনার দক্ষতাকে মামুলী বিবেচনা করবেন না। আপনি হয়তো এমন কোন কাজ রোজই করেন যার জন্য আপনাকে কোন চিন্তাই করতে হয় না। কিন্তু সবার জন্য ব্যাপারটা এক রকম নয়। আপনি বেশ কিছু সময় ধরে আপনার দক্ষতা অর্জন এবং সুচারু করেছেন। এতোটাই যে আপনার কাছে এটি খুব সহজ মনে হয়। তার মানে এই না যে কাজটি আসলেই খুব সহজ!

মিথ্যা বলবেন না

মিথ্যা বলার লোভ আসতেই পারে। কিন্তু তাই বলে আপনার অভিজ্ঞতা সম্পর্কে মিথ্যা বা বাড়িয়ে বলবেন না। আপনার মিথ্যা সহজেই ধরা পড়তে পারে আর এরপর আপনি কোনভাবেই কাজটি আর পাবেন না।

আপনি যদি অন্যসব বিচারে চাকরিটির জন্য সঠিক ব্যক্তি হয়ে থাকেন তাহলে অনেক কোম্পানিই আপনার দক্ষতার অভাব পূরণে আপনাকে প্রশিক্ষণ দিতে আগ্রহী হবে।

খাপ খাওয়ানোর জন্য সংশোধন

আপনি যদি বেশ কিছু চাকরির জন্য একাধারে আবেদন করতে থাকেন তাহলে প্রতিটি চাকরির প্রয়োজনীয়তা অনুসারে আপনার রেজ্যুমেটিতে ছোটখাটো সংশোধন আনতে হতে পারে। তার মানে এই না যে আপনি মিথ্যা বলবেন বা বানিয়ে বলবেন। কিন্তু অপ্রাসঙ্গিক বিষয় ছাঁটাই করে নিয়োগকর্তার চাহিদা অনুসারে প্রয়োজনীয় যোগ্যতাগুলোতে গুরুত্ত্ব আরোপ করলে তা আপনারই কাজে লাগবে।

শোরগোল তুলে দিন

আপনার সিভিতে যদি ঘাটতি দেখা দেয়...

  • আপনার শিল্পী বিবৃতি বা কভার লেটারটিকে আপনার রেজ্যুমের অংশ বানান। যদিও এটিকে তার পেইজেই সীমাবদ্ধ রাখতে চেষ্টা করবেন।
  • আপনার রেজ্যুমেটিকে ইচ্ছাকৃতভাবে একটা সংক্ষিপ্ত রূপ দেওয়ার চেষ্টা করুন।
  • আপনার রেজ্যুমেটিকে পোর্টফলিও-কেন্দ্রিক হিসেবে তৈরি করুন। আপনার অভিজ্ঞতার বদলে ভিজ্যুয়াল কাজের উপর গুরত্ত্ব দিবেন।

আর আপনার সিভিতে যদি খুব বেশি তেজোদ্দীপ্ত হয়...

আপনার টেম্পলেটের রেজ্যুমে গ্রুপের অংশটুকু নকল করে নিন যাতে একই ধাঁচে আরও জায়গা পাওয়া যায়। নকল করা স্তরটুকুতে অপ্রাসঙ্গিক সবকিছু মুছে দিন।  প্রতিটি পাতায় ফুটারের মধ্যে আপনার সাথে যোগাযোগের তথ্যাদি যোগ করে দিন। যাতে করে আপনি যখন প্রিন্ট করবেন বা রেজ্যুমে পাঠাবেন বা যিনি গ্রহণ করবেন তিনি যাচাই বা প্রতিলিপি তৈরি করার সময় আপনার পাতাগুলো আলাদা হয়ে গেলে যাতে খুঁজে পাওয়া যায়।

আপনার পোর্টফলিওতে কী যোগ করতে হবে

মনো রেজ্যুমেতে একটি সুন্দর পোর্টফলিও অংশ রয়েছে। যারা এক নজরে তাদের কাজের তালিকা তৈরি করতে চান তাদের জন্য তৈরি করা হয়েছে। তবে শুধুমাত্র একটা বিশাল পোর্টফলিও তৈরি করেই ক্ষান্ত হবেন না। পরিস্থিতির উপর বিচার করে এই অংশটুকু ব্যবহার করা সঙ্গত নাও হতে পারে। কাজেই সতর্কতার সাথে বিবেচনা করুন।

আপনার সেরা এবং বৈচিত্র্যময় কাজগুলো বেছে নিন। এমনকি আপনার প্রতিটি প্রকল্প যদি দেখতে প্রায় একই রকম হয় তবুও চেষ্টা করুন এমন কিছু ছবি বাছাই করতে যাতে সব মিলে যেন মনে হয় খুব আকর্ষণীয় সব কাজের নমুনা দেওয়া আছে। আপনার রেজ্যুমেতে যেসব অভিজ্ঞতা ও দক্ষতার কথা উল্লেখ করা নেই সেগুলোও যেন আপনার পোর্টফলিওতে প্রতিফলিত হয়। একই সাথে আপনার যেসব দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার তালিকা করা হয়েছে সেগুলো যেন পোর্টফলিওতে প্রতিফলিত হয়।

portfolio
মনো রেজ্যুমের পোর্টফলিওর পাতা

আমি এখানে কিছু ছবি আটকে রাখার মতো প্রতিকৃতি যোগ করেছি যাতে পোর্টফলিওটি সম্পন্ন হয়ে গেলে কেমন দেখায় তা দেখতে পারেন। আপনার যদি অনেক কিছু দেখানোর থাকে তাহলে টেম্পলেটের পোর্টফলিও অংশটুকুর প্রতিলিপি করে নিন এবং যতোগুলো প্রয়োজন পাতা তৈরি করুন। মনে রাখবেন যে কেউই পাতার পর পাতা উল্টে যেতে চায় না। কাজেই আপনার সেরা এবং প্রাসঙ্গিক কাজগুলোই শুধু প্রদর্শনের চেষ্টা করবেন।

এই অংশটিও আপনার আবেদনকৃত প্রতিটি চাকরির জন্য আলাদাভাবে তৈরি করতে হতে পারে। আপনি এ পর্যন্ত জত কাজ করেছেন তার একটা চমৎকার, সার্বিক, ও সম্পূর্ণ  ধারণা দিবে এমনভাবে একটি সংস্করণ তৈরি করে রাখা ভালো। এরপর দ্বিতীয় সংস্করনের জন্য সেটির প্রতিলিপি তৈরি করে সেখানে প্রয়োজনমত সংশোধন বা পরিমার্জন করে নিন।

শুভ কামনা!

একবার আপনার রেজ্যুমে তৈরি হয়ে গেলে এরপর প্রতিবার নতুন করে তৈরি করার চাইতে প্রয়োজনমত হালনাগাদ করে নেওয়া মামুলী ব্যাপার। কাজেই কিছুটা নিয়মিত এই কাজটা করলে আপনার উপর চাপ অনেকটাই কমে যাবে। এখানে মনে রাখার জন্য কিছু মূল বিষয় উল্লেখ করা হল:

  • লেআউটটি সাধারণ কিন্তু দর্শনীয় করে তুলুন।
  • যোগাযোগের বর্তমান মাধ্যম উল্লেখ করা জরুরী। আপনার যদি স্কাইপে অ্যাকাউন্ট না থাকে তাহলে একটা খুলে ফেলার কথা বিবেচনা করতে পারেন। আর আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস যদি পেশাগত ক্ষেত্রের জন্য খুব বেশি বন্ধুসুলভ হয় তাহলে নতুন একটা যথাযথ ইমেইল অ্যাড্রেস খুলে ফেলুন।
  • আপনার প্রোফাইলটি তথ্যপূর্ণ, আকর্ষণীয়, এবং সংক্ষিপ্ত রাখুন। আপনার সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত অনুচ্ছেদ লিখে ফেলুন।
  • শুধু মাত্র প্রাসঙ্গিক কর্ম অভিজ্ঞতা উল্লেখ করুন আর তা যতোটা সম্ভব সংক্ষিপ্ত রাখুন।
  • যে কোন অনুদান, বৃত্তি, বা প্রদর্শনীর কথা উল্লেখ করতে ভুলবেন না।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার ক্ষেত্রে স্নাতকোত্তর পর্যায়ের যে কোন অর্জন প্রাসঙ্গিক না হলেও যোগ করুন। এই তথ্যে এটাই প্রমাণিত হয় যে আপনি উচ্চ মানসম্পন্ন ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে কাজ করতে সক্ষম।
  • আপনার অভিজ্ঞতাকে মামুলী মনে করবেন না। আপনি কতোটা চমৎকার তা সবাইকে জানান দিন!
  • আপনি যেই চাকরির জন্য আবেদন করবেন সেটার জন্য আপনার রেজ্যুমেটিকে পরিমার্জন করে নিন। প্রাসঙ্গিক যা কিছু তা আরও বেশি করে যোগ করুন আর অপ্রাসঙ্গিক বিষয় বাদ দিন।
  • আপনার রেজ্যুমেতে কখনও মিথ্যা বা বাড়িয়ে বলবেন না।

অনুপ্রেরণা পাওয়ার জন্য গ্রাফিক রিভার থেকে সৃজনশীল কাজের জন্য উপযুক্ত এমন অন্যান্য টেম্পলেটগুলো দেখে নিন:  

  • সুইস রেজ্যুমে: এই সাধারণ কিন্তু পরিচ্ছন্ন ৫ টি রেজ্যুমে টেম্পলেটের প্যাকের মাধ্যমে ইতিবাচক প্রভাব ফেলুন। টাইপোগ্রাফির উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে এই টেম্পলেটটি আপনার তথ্যগুলোকে এমনভাবে সংক্ষিপ্ত আকারে সাজিয়ে দিবে যে তা দেখতে সুন্দর আর পড়তেও আরাম হবে।
  • পেশাদার রেজ্যুমে: এটি একটি সহজে ব্যবহারযোগ্য পরিমার্জনযোগ্য টেম্পলেট। রং পরিবর্তন করে এমন একটি রেজ্যুমে তৈরি করুন যাতে তা দেখতে পরিচ্ছন্ন ও পেশাদার মনে হয়।
  • পেশাদার রেজ্যুমে/সিভি: এই শক্তিশালী টাইপোগ্রাফিক কাঠামোতে একটি আনুভূমিক ছক কাটা আছে এবং টেক্সটের সাথে ছবি বিন্যস্ত করার ব্যবস্থা রয়েছে। সম্পূর্ণ টেম্পলেটটিতে একটি দুই পাতার রেজ্যুমে, একটি কভার লেটার, এবং একটি ক্ষুদে পোর্টফলিও রয়েছে।

Advertisement
Advertisement
Looking for something to help kick start your next project?
Envato Market has a range of items for sale to help get you started.